মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

এক নজরে

ফুলবাড়ী উপজেলা ২২৮৬০ হেঃ জমি নিয়ে গঠিত। এ উপজেলাটি মৌসুমি জলবায়ুর অন্তর্ভূক্ত। বরেন্দ্র সমতল ভূমি ও হিমালয় পাদ দেশীয় পলল ভূমি নামক ৩ টি কৃষি পরিবেশ অঞ্চল (৩, ২৫ ও ২৭) নিয়ে গঠিত। অত্র উপজেলায় বর্ষা মৌসুম সাধারনত মে মাস হতে অক্টোবর মাস পর্যন্ত স্থায়ী হয়। শতকরা ৯০ থেকে ৯৪ ভাগ বৃষ্টিপাত এ সময় হয়। শীতকাল শুরু হয় নভেম্বর মাসে এবং শেষ হয় মার্চ মাসে। বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলের চেয়ে শীতকাল ১৫ থেকে ২০ দিন আগে এবং ২০ থেকে ২৫ দিন পরে যথাক্রমে শুরু ও শেষ হয়। পূর্ব হতেই এ উপজেলার কৃষকগণ রাসায়নিক সার হিসাবে ইউরিয়া সার ব্যবহার করত। বর্তমানে ব্যাপক প্রচার, প্রদর্শনী ও উদ্বুদ্ধকরণের মাধ্যমে কৃষকগণকে সুষম সার ব্যবহারে উদ্বুদ্ধ করা হয়েছে। ফলে মাটির স্বাস্থ্য সুরক্ষার সাথে সাথে ফসলের উৎপাদন আশানুরুপ হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্ধিত জনগনের খাদ্য চাহিদা পূরন করতে হলে কৃষির উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধির প্রচেষ্টা এবং প্রক্রিয়া চলমান রাখতে হবে। ফলে শস্যের উৎপাদনশীলতা তরান্বিত করে এলাকার খাদ্যের স্বয়ং সম্পূর্ণতা অর্জনের সাথে সাথে দেশের খাদ্য ঘাটতি এলাকা সমূহে উদ্বুদ্ধ খাদ্য সরবরাহ করার কৃষি দপ্তরের উন্নয়নের মূল লক্ষ্য। এ ছাড়াও শস্য বহুমূখী করণে উৎসাহিত করার জন্য এলাকার সম্ভাবতা অনুযায়ী কৃষকদের সহযোগীতা প্রদান করা, উন্নত বীজ সংরক্ষণে প্রশিক্ষণ প্রদান এবং মাটির ধরন অনুযায়ী শস্য বিন্যাসে চাষ করতে কৃষকদের উৎসাহিত করা হবে। সম্বনিত খামার ব্যবস্থাপনা এবং ন্যায্য মূল্যে কৃষি উপকরন সরবরাহ নিশ্চিত করা হবে। সেচ মৌসুমে কৃষকেরা যাতে সেচ প্রদান অব্যাহত রাখতে পারে তার জন্য ডিজেল ও বিদ্যুৎ এর সরবরাহ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে মনিটরিং কার্যক্রম জোরদার করা হবে। ক্ষুদ্রকার পানি সম্পদ ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে এলাকার এক ও দুই ফসলী জমিকে তিন ও চার ফসলী জমিতে রুপান্তর করার প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেওয়া হবে। ভূ-উপরস্থ পানি ব্যবহারে কৃষকদেরকে উৎসাহিত করা হবে।

 

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter